শিরোনাম

খেলাধুলা

আইপিএলের ইতিহাসে সর্বোচ্চ রান হায়দরাবাদের

স্পোর্টস ডেস্ক: ইন্ডিয়ান্সের বিপক্ষে  মুম্বাই ২৭৭ রানের বিশাল স্কোর গড়েছিলো সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। আইপিএলের ইতিহাসে যা সর্বোচ্চ রানের স্কোর। এরপর কয়েকদিন পর দিল্লি ক্যাপিটালসের বিপক্ষে ২৭২ রান করেছিলো কেকেআর। হায়দরাবাদের রেকর্ড স্কোরের চেয়ে ৫ রান কম করেছিলো তারা।

কিন্তু রেকর্ড গড়ে সেটা নিজেরাই ভেঙে দিলো হায়দরাবাদ। আজ (সোমবার) বেঙ্গালুরুর এম চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে নিজেদের ২৭৭ রানের রেকর্ড ভেঙে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ গড়লো ৩ উইকেট হারিয়ে ২৮৭ রানের বিশাল স্কোর। আগের ইনিংসের চেয়েও ১০ রান বেশি করলো এবার তারা।

হায়দরাবাদের এই বিধ্বংসী স্কোরের পেছনে সবচেয়ে বড় অবদান দলটির অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার ট্রাভিস হেডের। ৩৯ বলে সেঞ্চুরি করেন তিনি। ৪১ বলে আউট হন ১০২ রান করে। এছাড়া হেনরিক ক্লাসেন এবং শেষ দিকে এইডেন মারক্রাম ও আবদুল সামান ঝড় তুলে হায়দরাবাদের ইনিংসকে এভারেস্টের চূড়ায় তুলে দেন।

বেঙ্গালুরুর এম চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে টস জিতে হায়দরাবাদকে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানান বেঙ্গালুরু অধিনায়ক ফ্যাফ ডু প্লেসি। আমন্ত্রিত হয়ে ব্যাট করতে নেমে বেঙ্গালুরু বোলারদের ওপর রীতিমত টর্নেডো বইয়ে দিতে শুরু করেন দুই ওপেনার ট্রাভিস হেড এবং অভিষেক শর্মা।

৬ ওভার ৭৬, ৭ ওভারে তারা তুলে ফেলে ৯৭ রান। ৭.১ ওভারে পার করে ফেলে ১০০ রানের মাইফলক। ১১.২ ওভারে ছুঁয়ে ফেলে ১৫০ রান। ১৫ ওভারে পূরণ করে ২০০ রান। ওভারপ্রতি রান তুলছে ১৪.৩৫ করে।

আরও পড়ুন: 

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ক্রিকেট খেলা নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৩০

সিঙ্গাপুরকে হারিয়ে পরাজয়ের প্রতিশোধ নিল বাংলাদেশ

২০ বলে হাফ সেঞ্চুরি পূরণ করে ফেলেন ট্রাভিস হেড। এরপর ৩৯ বলে পূরণ করেন সেঞ্চুরি। মাঝে ২২ বলে ৩৪ রান করা অভিষেক শর্মা ছক্কা মারতে গিয়ে বাউন্ডারি লাইনে ধরা পড়েন রিস টপলির হাতে। ততক্ষণে ৮.১ ওভারে ১০৮ রানের জুটি গড়েছেন তারা।

ট্রাভিস হেড এবং হেনরিক ক্লাসেন মিলে গড়েন ৫৭ রানের জুটি। দলীয় ১৬৫ রানের মাথায় ৪১ বলে ১০২ রান করে আউট হন ট্রাভিস হেড। লকি ফার্গুসনের একটি বলকে ছক্কা মারতে গিয়ে আকাশে তুলে দেন বল। ফ্যাফ ডু প্লেসি সেটি তালুবন্দী করেন। ৯টি বাউন্ডারির সঙ্গে ৮টি ছক্কা দিয়ে নিজের ইনিংস সাজান হেড।

google-news-channel-newsasia24

হেনরিক ক্লাসেন ছিলেন আরও মারমুখি। যদিও তিনি ২৩ বলে হাফ সেঞ্চুরি পূরণ করেন। শেষে আউট হন ৩১ বলে ৬৭ রান করে। ২টি বাউন্ডারির সঙ্গে ৭টি ছক্কার মার মারেন তিনি। ১৭ বলে এইডেন মারক্রাম করেন ৩২ রান। ২টি করে বাউন্ডারি এবং ছক্কার মার মারেন তিনি।

আবদুল সামাদ ১০ বলে খেলেন ৩৭ রানের ইনিংস। ৪টি বাউন্ডারির সঙ্গে মারেন ৩টি ছক্কার মার। মূলত শেষ দিকে তার ঝোড়ো ব্যাটিংয়েই ২৭৭ রানের রেকর্ড পার হয়ে ২৮৭ রান করতে সক্ষম হয় হায়দরাবাদ।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ক্রিকেট খেলা নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৩০

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে ৩০ জন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

আজ শুক্রবার (১২ এপ্রিল) দুপুরে উপজেলার ফান্দাউক ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বৃহস্পতিবার ফান্দাউক গ্রামে দুই পক্ষের মধ্যে প্রীতি ক্রিকেট ম্যাচের আয়োজন করা হয়। খেলা চলাকালীন দুই তরুণের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে তারা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

এ নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে, একটি পক্ষকে সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুল আওয়াল ও অপর পক্ষকে মো. রিপন মিয়া সমর্থন দেয়। পরে বিষয়টি সালিশের মাধ্যমে নিষ্পত্তির আলোচনা হয়।

শুক্রবার জুমার নামাজ পড়ে বের হওয়ার পর আওয়াল মিয়ার পক্ষের লোকদের ওপর অতর্কিত হামলা করে রিপন মিয়ার লোকজন। দ্রুত বিষয়টি গ্রামে ছড়িয়ে পড়লে উভয়পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়ায়। সংঘর্ষে দুই পক্ষের ৩০ জন আহত হয়েছেন।

আরও পড়ুন: 

নাসিরনগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. সোহাগ রানা বলেন, উপজেলার ফান্দাউক ইউনিয়নে ক্রিকেট খেলা নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে মারামারি হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

google-news-channel-newsasia24

আজ থেকে শুরু আফ্রিকার ফুটবল যুদ্ধ

স্পোর্টস ডেস্ক: আজ থেকে শুরু হবে আফ্রিকা কাপ অব নেশনসের ৩৪তম আসর। শিরোপা লড়াইয়ে ২৪ দল আগামী এক মাস ধরে মুখোমুখি হবে এ ফুটবল যুদ্ধে।

মোহাম্মদ সালাহ, সাদিও মানে ও ভিক্তর ওসিমেনের মতো তারকারা প্রতিনিধিত্ব করবেন নিজ নিজ দেশের। আজ প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হবে স্বাগতিক আইভরিকোস্ট ও গিনি বিসাউ। আফ্রিকা কাপ অব নেশনস নিয়ে আরও জানার আছে—

২০২৩–এর আয়োজন ২০২৪ সালে,

২৪ দল নিয়ে এবারের আসরটি মাঠে গড়ানোর কথা ছিল আরও ৬ মাস আগে, ২০২৩ সালের জুন-জুলাইয়ে। তবে আইভরি কোস্টের প্রতিকূল আবহাওয়ার কারণে সেটি পিছিয়ে যায়। টুর্নামেন্টের নামে অবশ্য ‘২০২৩’–ই থাকছে।

Africa's-football-war-begins-today-newsaia24

দ্বিতীয়বারের মতো আফ্রিকান শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ের আয়োজন করছে আইভরিকোস্ট। এর আগে ১৯৮৪ সালে প্রথমবার এই প্রতিযোগিতার আয়োজক দেশ হয়েছিল তারা। আয়োজক হিসেবে প্রথমবার ভালো করতে পারেনি আইভরিকোস্ট। টোগোর বিপক্ষে জিতলেও, মিসর ও ক্যামেরুনের কাছে হেরে বিদায় নিয়েছিল তারা। সেবার ৮টি দেশ ১৫ দিন ধরে মেতেছিল শিরোপা লড়াইয়ে। শেষ পর্যন্ত শিরোপা জিতেছিল ক্যামেরুন, রানার্সআপ হয়েছিল নাইজেরিয়া। আর তৃতীয় সেরা দল ছিল আলজেরিয়া।

আরও পড়ুন>>নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে বাংলাদেশের ঐতিহাসিক ওয়ানডে জয়

আইভরিকোস্টের ৫টি শহরের ৬টি ভেন্যুতে আয়োজিত হবে এবারের প্রতিযোগিতা। বাণিজ্যিক শহর আবিদজানের দুটি ভেন্যুতে খেলা হবে ২০ ম্যাচ। বুয়াকেতে হবে ৯ ম্যাচ, সান পেদ্রো ও ইয়ামোসুকরোতে হবে ৮ ম্যাচ করে এবং কোরহোগোতে হবে ৭ ম্যাচ। আইভরিকোস্ট–গিনি বিসাউয়ের উদ্বোধনী ম্যাচ এবং ১১ ফেব্রুয়ারির ফাইনাল আবিজানের ৬০ হাজার আসনবিশিষ্ট আলহাসানে আউত্তারা স্টেডিয়ামে। সান পেদ্রো, কোরহোগো ও ইয়ামোসুকরোর ২০ হাজার আসনবিশিষ্ট মাঠগুলো অবশ্য নতুন করে বানানো হয়েছে এ প্রতিযোগিতার জন্য। আর আবিদজানের অন্য মাঠ ফেলিক্স–বোইগনি স্টেডিয়ামের দর্শক আসন সংখ্যা ৪০ হাজার। এ ছাড়া বুয়াকের অন্য স্টেডিয়ামটির আসন সংখ্যা ৪০ হাজার।

১৯৫৭ সালে প্রথমবারের মতো বসেছিল আফ্রিকার ফুটবল শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই। এখন পর্যন্ত ৩৩ বার মাঠে গড়িয়েছে এ আয়োজন। যেখানে সর্বোচ্চ সাতবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে মিসর। ৫ বার জিতেছে ক্যামেরুন, ৪ বার ঘানা আর ৩ বার নাইজেরিয়া। ২ বার করে জিতেছে আইভরিকোস্ট, আলজেরিয়া ও কঙ্গো প্রজাতন্ত্র। একবার করে জিতেছে জাম্বিয়া, তিউনিসিয়া, সুদান, সেনেগাল, ইথিওপিয়া, মরক্কো, দক্ষিণ আফ্রিকা ও কঙ্গো।

আরও পড়ুন>>সৌম্যর রেকর্ড ১৬৯

গতবারের দুই ফাইনালিস্ট সাদিও মানের সেনেগাল এবং মোহাম্মদ সালাহর মিসরকেই ভাবা হচ্ছে অন্যতম ফেবারিট। এরপর আগ্রহ আছে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে খেলা মরক্কোকে নিয়েও। তবে এই প্রতিযোগিতায় নাইজেরিয়া ও আলজেরিয়ার মতো দলও দারুণ কিছু করে দেখাতে পারে।

তারকা খেলোয়াড়এবারের আসরে অন্যতম দুই সেরা তারকা মোহাম্মদ সালাহ ও সাদিও মানে। আছে আফ্রিকার বর্ষসেরা খেলোয়াড় ভিক্তর ওসিমেনও। অন্যদের মধ্যে আলজেরিয়ার রিয়াদ মাহরেজ, মরক্কোর ইউসেফ এন নেসিরি, গিনির সেরহাউ গুইরাসি এবং সেনেগালের এদোয়ার্দো মেন্দি উল্লেখযোগ্য।

আরও পড়ুুন>>কিয়ামত আলী বিশ্বাস -গেদিরন নেছা বালিকা এতিমখানায় বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা

বর্তমান চ্যাম্পিয়ন সেনেগাল আলিউ সিসের হাত ধরেই প্রথমবারের মতো শিরোপা জিতেছিল। এবারও চোখ থাকবে তাঁর ওপর। আছেন মরক্কোকে বিশ্বকাপে সেমিফাইনালে নিয়ে যাওয়া ওয়ালিদ রেগেরুই। কৌশল এবং খেলোয়াড়দের সেরাটা বের করে কীভাবে দলকে সাফল্য এনে দিতে হয়, তা ভালোই জানা আছে তাঁর। এ ছাড়া অন্যদের মধ্যে মিসরের রুই ভিতোরিয়া, আইভরিকোস্টের ইয়ান লুইস গ্যাসেট, নাইজেরিয়ার জোসে পেসেইরোও কৌশলে বাজিমাত করার ক্ষমতা রাখেন।

প্রাইজমানিরেকর্ড ৭০ লাখ ডলার পাবে বিজয়ী দল, যা কিনা আগের আসরের চেয়ে ৪০ শতাংশ বেশি। আর রানার্সআপ দল পাবে ৪০ লাখ ডলার।

google-news-channel-newsasia24

Follow

নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে বাংলাদেশের ঐতিহাসিক ওয়ানডে জয়

স্পোর্টস ডেস্ক: তৃতীয় ওয়ানডেতে নিউ জিল্যান্ডকে ৯ উইকেটে হারাল নাজমুল হোসেন শান্তর নেতৃত্বাধীন দল। নিউজিল্যান্ডের মাটিতে এটাই বাংলাদেশের প্রথম ঐতিহাসিক ওয়ানডে জয়।

সিরিজ হাতছাড়া হয়ে গেছে আগেই। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেটি কেবল আনুষ্ঠানিকতার। তবে বাংলাদেশের জন্য এই ম্যাচটি ছিল অনেকদিক দিয়ে গুরুত্ববহ। শুধু হোয়াইটওয়াশের লজ্জা এড়ানোই নয়, ইতিহাস গড়ার হাতছানিও যে ছিল।

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে টেস্ট জিতলেও এর আগে কখনই সীমিত ওভারে (ওয়ানডে বা টি-টোয়েন্টি) জয় দেখেনি বাংলাদেশ। অবশেষে সেই জয় ধরা দিলো ওয়ানডে ফরম্যাটে।Bangladesh's-historic-ODI-win-over-New-Zealand-newsasia24 2

অধিনায়ক শান্ত জয়সূচক রান নেওয়ার পাশাপাশি ফিফটিও পূরণ করেন। ৪২ বলে ৮ চারের সাহায্যে ৫১ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। ১ রানে অপরাজিত ছিলেন লিটন দাস।

আরও পড়ুন>> সৌম্যর রেকর্ড ১৬৯

সাফল্য পেতে বেশি সময় লাগেনি। কিউই ইনিংসের চতুর্থ ওভারের শেষ বলে তিনি সাজঘরে ফেরান রাচিন রাবিন্দ্রকে। ধারাবাহিকভাবে ভালো বল করে তানজিম সাকিব বিভ্রান্ত করেন নিউজিল্যান্ড ওপেনারকে।

সাকিবের মিডলে পিচ করা বলে ব্যাট ছুঁইয়ে রাচিন উইকেটরক্ষক মুশফিকুর রহিমের হাতে ধরা পড়েন ১২ বলে ৮ করে। ১৬ রানে প্রথম উইকেট হারায় স্বাগতিকরা।

তৃতীয় উইকেটে বিপদ কাটানোর চেষ্টা করেন টম ল্যাথাম আর উইল ইয়ং। তবে ৫৫ বলে তাদের ৩৬ রানের জুটিটি ১৭তম ওভারে এসে ভেঙে দেন শরিফুল ইসলাম। সেট হওয়া কিউই অধিনায়ক টম লাথাম ডিফেন্ড করতে গিয়েও স্টাম্প বাঁচাতে পারেননি। বোল্ড হয়ে ফেরেন ৩৪ বলে ২১ করে।

নিজের পরের দুই ওভারে আরও দুই উইকেট তুলে নেন শরিফুল। ১৯তম ওভারে আরেক সেট ব্যাটার ইয়ংকে ফেরান বাঁহাতি এই পেসার।গালিতে মেহেদী হাসান মিরাজের হাতে ধরা পড়েন ইয়ং। ৪৩ বলে তার ব্যাট থেকে আসে ২৬ রান।

আরও পড়ুন>>  সিঙ্গাপুরকে হারিয়ে পরাজয়ের প্রতিশোধ নিল বাংলাদেশ

২১তম ওভারে শরিফুলের শিকার মার্ক চ্যাপম্যান। ২ রান করে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন কিউই ব্যাটার। ২৩তম ওভারে আবার তানজিম সাকিবকে আক্রমণে ফেরান শান্ত। এবার প্রথম বলেই উইকেট। টম ব্লান্ডেল (১৭ বলে ৪) ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে ক্যাচ তুলে দেন মিরাজের হাতে। ৭০ রানে ৬ উইকেট হারায় নিউজিল্যান্ড।

স্বীকৃত ব্যাটারের মধ্যে ছিলেন কেবল জর্জ ক্লার্কসন। তবে উইকেট ধরে রাখতে চেয়েও পারেননি তিনি। পার্টটাইমার সৌম্য সরকারের বলে ইনসাইডেজ হয়ে বোল্ড হন এই ব্যাটার, ২৩ বলে তিনি করেন ১৬ রান।

আরও পড়ুন: 

ক্লার্কসনকে তুলে নেওয়ার পর কিউইদের লেজটা ছেঁটে দিয়েছেন সৌম্যই। শেষ উইকেটের তিনটিই নেন এই অলরাউন্ডার। মোস্তাফিজুর নেন শেষ উইকেটটি।

শরিফুল ৭ ওভারে ২২ রান দিয়ে নেন ৩টি উইকেট। সমান ওভারে ১৪ রানে ৩ উইকেট তানজিম হাসান সাকিবের। সৌম্য সরকার ৬ ওভারে ১৮ রান খরচায় নেন ৩টি।

 

google-news-channel-newsasia24

সৌম্যর রেকর্ড ১৬৯

নিউজ এশিয়া২৪ ডেস্ক: কয়েকবার ভাগ্যের সাহায্য পেয়েছেন সৌম্য । ৯২ রানে এসে নার্ভাস নাইন্টিজেই প্রায় কাটা পড়তে যাচ্ছিলেন। বড় শট খেলতে গিয়ে বল তুলে দেন ত্রিশ গজের মধ্যে।

কিন্তু উইল ইয়ং সে ক্যাচ ফেলে দেন। ভাগ্য বরাবরই সাহসীদের পক্ষে থাকে। সৌম্য সরকারের বেলায় সেটা যেন প্রমাণ হলো আরও একবার।

প্রায় পাঁচ বছর পর, ফর্মে ফেরার দিন ওয়ানডে ক্যারিয়ারের তৃতীয় সেঞ্চুরিও তুলে নিলেন সৌম্য।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশি কোনো ব্যাটারের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংসের রেকর্ড গড়েছেন সৌম্য। সবমিলিয়ে ওয়ানডেতে দেশের ইতিহাসের দ্বিতীয় সেরা ইনিংসের মালিক এখন তিনি। এর চেয়ে ভালো প্রত্যাবর্তন আর কী হতে পারতো!

আরও পড়ুন>>সিঙ্গাপুরকে হারিয়ে পরাজয়ের প্রতিশোধ নিল বাংলাদেশ

সৌম্যর ১৫১ বলে ১৬৯ রানের মহাকাব্যিক ইনিংসে ভর করে বাঁচামরার সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ৪৯.৫ ওভারে ২৯১ রানে অলআউট হয়েছে বাংলাদেশ। অর্থাৎ জিততে হলে ২৯২ করতে হবে নিউজিল্যান্ডকে।

নেলসনের সাক্সটন ওভালে টস জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ে পাঠান নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক টম ল্যাথাম। এনামুল হক বিজয় আর সৌম্য সরকারের জুটিটা ভাঙে পঞ্চম ওভারে দলীয় ১১ রানেই।

shoummo-run-179-newsasia224

আরও পড়ুন>>ক্রিকেট বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া

অ্যাডাম মিলনের বেরিয়ে যাওয়া বল ডিফেন্ড করতে গিয়ে দ্বিতীয় স্লিপে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন বিজয়। ১২ বল খেলে তিনি করেন মাত্র ২ রান।

সঙ্গী হারালেও সৌম্যকে বেশ আত্মবিশ্বাসী দেখাচ্ছিল, উইল ও’রউরকের করা ইনিংসের অষ্টম ওভারে তিনটি বাউন্ডারি হাঁকান এ বাঁহাতি। কিন্তু পরের ওভারেই ফের ধাক্কা খায় বাংলাদেশ। এবার সৌম্যকে রেখে ফেরেন অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত।

আরও পড়ুন>>৮ উইকেটে হারল বাংলাদেশ

বরাবরের মতো দৃষ্টিকটু আউট শান্ত। জ্যাকব ডাফির বলটি আলগাভাবে ফ্লিক করতে গেলে ব্যাটের সাইডে লেগে উঠে যায় আকাশে। সহজ ক্যাচ নেন নিকোলস। ৯ বলে বাংলাদেশ দলপতি করেন ৬ রান। দলীয় ৩৬ রানে দ্বিতীয় উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

এরপর লিটন কিউই পেসার ডাফির বলে দৃষ্টিনন্দন এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে পরের বলেই কভার পয়েন্টে উইকেট বিলিয়ে আসেন। ১১ বলে করেন ৬ রান। ৪৪ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে বাংলাদেশ।

আরও পড়ুন>>কুষ্টিয়ার চলছে তিন দিন ব্যাপী লাঠি খেলা

সৌম্য আর তাওহিদ হৃদয়ের জুটিটা ভালোভাবেই এগোচ্ছিল। ৩৬ রানে তাদের জুটি ভাঙে দুর্ভাগ্যজনকভাবে। সৌম্যর শট বোলার ক্লার্কসনের হাতে লেগে ভেঙে যায় ননস্ট্রাইকের স্টাম্প। হৃদয় কিছুটা বাইরে ছিলেন। ১৬ বলে ১২ করে ফিরতে হয় তাকে।

সৌম্য ওয়ানডে ক্যারিয়ারের সবশেষ ৬ ইনিংসই খেলেছেন নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। এর মধ্যে তিন ইনিংসে ০, একটিতে ১। সৌম্যর আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারটা রীতিমত বিষাদের ছায়ায় ঢেকে পড়েছিল। দল থেকেও বাদ পড়েন।

মাঝে আড়াই বছর ওয়ানডে দলে জায়গা পাননি। বিশ্বকাপের আগমুহূর্তে হেড কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের ইচ্ছাতে দলে ফেরেন। কিন্তু এক ইনিংস ব্যাট করে ০ উপহার দিলে তাকে আর বিশ্বকাপ দলে নেয়ার ঝুঁকি নেননি হাথুরু।

আরও পড়ুন>>২০২৪ ইউরো বাছাই পর্ব; বেলজিয়াম-সুইডেন ম্যাচ বাতিল

তবে বিশ্বকাপ শেষ হতেই আবার সৌম্য দলে। এবারও ফিরেই ০। মনে হচ্ছিল, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে জায়গা হারাতে পারেন।কিন্তু আরেকটি সুযোগ পেয়ে যান সৌম্য। এবার আর ভুল করেননি। ৫৮ বলে ৯ বাউন্ডারিতে পঞ্চাশ ছোঁন সৌম্য।

২০১৯ সালের জুলাইয়ে কলম্বোতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৬৯ রানের ইনিংস খেলেছিলেন। এরপর আর ফিফটি পাননি। দলে আসা যাওয়ার মাঝে অবশ্য এই সময়ে খেলেছেন মোটে ৯টি ওয়ানডে, ৬টিতে করেছেন ব্যাটিং। এর মধ্যে পাঁচ ইনিংসেই দশের নিচে আউট।

আরও পড়ুন>>বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান নিয়ে গুঞ্জন

দীর্ঘ সাড়ে চার বছর পর সৌম্য আন্তর্জাতিক ওয়ানডেতে রান পেলেন। ফিফটির পর অবশ্য ক্যাচ দিয়েছিলেন। রাচিন রাবিন্দ্র কভারে কঠিন সে ক্যাচ ফেলে দেন।

৮০ রানে বাংলাদেশ হারিয়েছিল ৪ উইকেট। সেখান থেকে মুশফিকুর রহিমকে নিয়ে পঞ্চম উইকেটে দারুণ এক জুটি সৌম্যের। ১০৭ বলে তারা যোগ করেন ৯১ রান। মুশফিককে উইকেটরক্ষকের ক্যাচ বানিয়ে জুটিটি অবশেষে ভাঙেন ডাফি। ৫৪ বলে ৫ বাউন্ডারিতে মুশফিক করেন ৪৫।

আরও পড়ুন>>কিয়ামত আলী বিশ্বাস -গেদিরন নেছা বালিকা এতিমখানায় বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা

তবে সৌম্য তার ওয়ানডে ক্যারিয়ারের তৃতীয় সেঞ্চুরি তুলে নেন ১১৬ বলে। চার-ছক্কায় মাঠ গরম করা সৌম্যের সুযোগ ছিল দেশের হয়ে ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংসের রেকর্ডটি নিজের করে নেয়ার।

২০২০ সালে সিলেটে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ১৭৬ রানের ইনিংস খেলেছিলেন লিটন দাস। সৌম্য মাত্র ৮ রানের জন্য তাকে পেছনে ফেলতে পারেননি। ইনিংসের পাঁচ বল বাকি থাকতে ও’ররকির বলে এক্সট্রা কভারে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন সৌম্য। ১৫১ বলে গড়া সৌম্যের ১৬৯ রানের ইনিংসে ছিল ২২টি চার আর ২টি ছক্কা।

google news newsasia24

Follow

কিয়ামত আলী বিশ্বাস -গেদিরন নেছা বালিকা এতিমখানায় বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা

এম এ ওহাব, কুমারখালী প্রতিনিধিঃ” সুস্থ ধারায় জীবন গড়ি খেলাধুলাকে আঁকড়ে ধরি”স্লোগান কে সামনে রেখে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গত শুক্রবার কুষ্টিয়ায় কুমারখালী হাজী কিয়ামত আলী বিশ্বাস -গেদিরন নেছা বালিকা এতিমখানায় বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতা সম্প্রতি অনুষ্ঠিত হয়।

এতিম শিশুদের অবিভাবকদের উপস্থিতিতে শুরু হয় বিভিন্ন ধরনের খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতা।

এক আনন্দঘন পরিবেশে এতিমখানাটির মধ্যেই এই আয়োজন সম্পন্ন করা হয়। পড়ালেখায় আগ্রহী করে গড়ে তুলতে এতিমখানাটি নানাবিধ উদ্যোগ নিয়েছেন।

google news newsasia24

এতিম শিশু ও অবিভাবকদের সাথে মতবিনিময় ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এডভোকেট আবু সামস খালেকুজ্জামান, কুমারখালী সরকারি কলেজের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক জিল্লুর রহমান মধু, আশরাফুল ইসলাম হিরো, সাংবাদিক এম এ ওহাব, সাংবাদিক সাকিব আল হাসান প্রমুখ।

আরও পড়ুন : 

সিঙ্গাপুরকে হারিয়ে পরাজয়ের প্রতিশোধ নিল বাংলাদেশ

স্পোর্টস ডেস্ক: বাংলাদেশ নারী ফুটবল দল ফিফা আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে ৩-০ গোলের ব্যবধানে সিঙ্গাপুরকে হারিয়ে দিয়েছে।

আজ শুক্রবার (১ ডিসেম্বর) কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে এ প্রীতি ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হয়। খেলা শুরু মাত্র ৩ মিনিটির মাথায় একটি গোল করে দলকে এগিয়ে নেন আফিদা খন্দকার। এর জোড়া গোল করেন তহুরা খাতুন।

এ দলের কোচ ছিলেন বারী টিটু। তার অধীনে মেয়েদের এটা প্রথম জয়। সাফের শিরোপা দেয়ার পর গোলাম রব্বানী ছোটন কোচের দায়িত্ব ছেড়ে দেন।

singapur-bangladesh-football-win-newsasia24 2

আগামী সোমবার বাংলাদেশ-সিঙ্গাপুর দ্বিতীয় প্রীতি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে সবশেষ সিঙ্গাপুরের মুখোমুখি হয়েছিল বাংলাদেশ। সেই ম্যাচে ৩-০ গোলে হেরেছিল বাংলাদেশর মেয়েরা। আজ সেই হারের প্রতিশোধ নিল বাংলাদেশ।

google news newsasia24

এক নজরে বাংলাদেশ একাদশ: সানজিদা আক্তার (শামসুন্নাহার জুনিয়র), মারিয়া মান্ডা, রিতু পর্না চাাকমা (শাহেদা আক্তার রিপা) তহুরা খাতুন (সুমাইয়া) ও সাবিনা খাতুন (আকলিমা, রুপনা চাকমা, শিউলি আজিম, শামসুন্নাহার, আফিদা খন্দকার, মাসুরা পারভীন, মনিকা চাকমা (স্বপ্না রানী)।

আরও পড়ুন: 

ক্রিকেট বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া

স্পোর্টস ডেস্ক:  ষষ্ঠবারের মতো ক্রিকেট বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল।

রবিবার (১৯ নভেম্বর) ভারতের আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে বিশ্বকাপের ১৩তম আসরের ফাইনালে ভারতকে ৬ উইকেটে হারায় অস্ট্রেলিয়া।

এদিন আগে ব্যাট করে চরম ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে ২৪০ রানে অলআউট হয় ভারত। টার্গেট তাড়ায় ৪৭ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়েছিল অস্ট্রেলিয়া। সেই অবস্থা থেকে মার্নাস লাবুশেনকে সঙ্গে নিয়ে চতুর্থ উইকেটে ২১৫ বলে ১৯২ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের দুয়ারে নিয়ে যান ট্রাভিস হেড।

জয়ের জন্য শেষদিকে ৪৪ বলে অস্ট্রেলিয়ার প্রয়োজন ছিল মাত্র ২ রান। ট্রাভিস হেড বাউন্ডারি হাঁকাতে গিয়ে সীমানার কাছে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন। তার আগে ১২০ বলে ১৫টি চার আর ৪টি ছক্কায় ১৩৭ রান করেন অস্ট্রেলিয়ান এই ওপেনার।

আরওপড়ুন> আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম কিনলেন ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান

এরপর ব্যাটিংয়ে নেমে মাত্র এক বল মোকাবেলা করে দুই রান নিয়ে দলের জয় নিশ্চিত করেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। ১১০ বলে চার বাউন্ডারিতে ৫৮ রান করে অপরাজিত থাকেন মার্নাস লাবুশেন।

২৪১ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে মোহাম্মদ শামির করা বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন ডেভিড ওয়ার্নার। তার বিদায়ে ১৬ রানে প্রথম উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া।

আরও পড়ুন: 

এরপর ইনিংস মেরামত করার আগেই দলীয় ৪১ রানে জাসপ্রিত বুমরাহর বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন মিচেল মার্শ। দলীয় ৪৭ রানে ফেরেন সাবেক অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ।

ক্রিকেট বিশ্বকাপের চলতি আসরে অপ্রতিরোধ্য ছিল ভারত। ফাইনালের আগে রোহিত শর্মার নেতৃত্বাধীন দলকে হারাতে পারেনি কোনো দল। অবিশ্বাস্য ফর্মে থাকা ভারতকে ফাইনালে ২৪০ রানে অলআউট করে অস্ট্রেলিয়া।

google-news-follow-us-newsasia24
গুগোল নিউজ ফলো করতে ক্লিক করুন

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম কিনলেন ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান

নিউজ এশিয়া২৪ ডেস্ক: দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান।

সাকিব ৩ টি আসনের জন্য নির্বাচনের ফরম তুলেছেন। আসনগুলো হলো— ঢাকা-১০, মাগুরা-১ ও ২।

sakib al hasan
sakib al hasan

সাকিব আল হাসানের পক্ষে স্বজনরা শনিবার (১৮ নভেম্বর) ২৩ বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউর আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে ফরমগুলো সংগ্রহ করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম।

দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনের জন্য আওয়ামী লীগ আজ ১০৭৪টি মনোনয়ন ফরম বিক্রি করেছে।

আরও পড়ুন:

আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া জানিয়েছেন আজ সরাসরি ১০৬০ জন, আর অনলাইনে ১৪ জন মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন।

google-news-follow-us-newsasia24
গুগোল নিউজ ফলো করতে ক্লিক করুন

৮ উইকেটে হারল বাংলাদেশ

নিউজ এশিয়া২৪ ডেস্ক: শ্রীলংকাকে হারিয়ে সেরা আটের সমীকরণ পূ্বেই সহজ করেছিল বাংলাদেশ।

আজ অস্ট্রেলিয়াকে হারালে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলা নিশ্চিত হতো।

cricket

তা করতে পারলো না নাজমুল হোসেন শান্তর দল।

তবে ৮ উইকেটে হারার পরও টাইগারদের সামনে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির পথ খোলা থাকছে।

আগামীকাল ভারতের বিপক্ষে নেদারল্যান্ডস হারলে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে কোয়ালিফাই করবে বাংলাদেশ কে।

আজ ১১ নভেম্বর পুনেতে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ৩০৬ রান তুলেছে বাংলাদেশ।

দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৭৪ রান এসেছে তাওহীদ হৃদয়ের ব্যাট থেকে। তাছাড়া ৪৫ রান করেছেন নাজমুল হোসেন শান্ত।

আরও পড়ুন:

অজিদের হয়ে ৩২ রানে ২ উইকেট করেন অ্যাডাম জাম্পা।

পরবর্তীতে খেলতে নেমে ৪৪ ওভার ৩ বলে ২ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় অস্ট্রেলিয়া। অজিদের হয়ে অপরাজিত ১৭৭ রানের ইনিংস খেলেছেন মার্শ।