শিরোনাম

শিরোনাম

বটগাছের নিচে চাপা পড়ে প্রাণ গেলো দুজনের

রাজশাহী প্রতিনিধি: ঝিরি ঝিরি বৃষ্টি, হালকা বাতাস। এতেই উপড়ে পড়ে একটি বটগাছ। এর নিচে চাপা পড়ে মৃত্যু হয়েছে ২ জনের। এ ঘটনায় আরও ৯ জন আহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (৪ জুন) রাত সাড়ে ৯টার দিকে রাজশাহীর বাঘা উপজেলার চকবাজার রাজার মোড়ে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- চকবাজার এলাকার মৃত মুরাদ হোসেনের ছেলে জামাল উদ্দিন (৪০) ও একই এলাকার মৃত রিয়াজ উদ্দিনের ছেলে জাকিরুল ইসলাম (৪২)।

মো. এহসারুল্লাহ নামের স্থানীয় এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, রাতে বৃষ্টির সাথে হালকা বাতাসও বইছিল। এ সময় হঠাৎ গ্রামের পুরনো বটগাছটি উপরে পড়ে। এতে গাছের পাশে চায়ের দোকানে বসে থাকা বেশ কয়েকজন ওই বটগাছের নিচে চাপা পড়েন। এতে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে।

আরও পড়ুন:

বাঘা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম বলেন, ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ ও স্থানীয়রা গিয়ে উদ্ধার কাজ চালায়। উদ্ধার কাজ শেষে দুইজনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যায়।

ওসি জানান, এ ঘটনায় আরও নয়জন আহত হয়েছেন। চিকিৎসার জন্য তাদের বাঘা ও পুঠিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

google-news-channel-newsasia24

লোকসভার চূড়ান্ত ফল: বিজেপি ২৪০, কংগ্রেস ৯৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভারতের লোকসভা নির্বাচনের চূড়ান্ত ফল ঘোষণা করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৪ জুন) মধ্যরাতে দেশটির নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত ফলাফলে দেখা গেছে, ৫৪৩টি আসনের মধ্যে ২৪০টিতে জয় পেয়েছে নরেন্দ্র মোদীর ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)। আর ৯৯টি আসনে জয় পেয়েছে প্রধান বিরোধীদল ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল কংগ্রেস।

এছাড়া অন্য দলগুলোর মধ্যে সমাজবাদী পার্টি (এসপি) ৩৭টি, তৃণমূল কংগ্রেস ২৯টি, ডিএমকে ২২টি, তেলেগু দেশম পার্টি (টিডিপি) ১৬টি, জনতা দল (জেডি-ইউ) ১২টি, শিবসেনা (উদ্ভব) ৯টি, ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টি (এনসিপিএসপি) ৮টি ও শিবসেনা (এসএইচএস) ৭টি আসনে জয় পেয়েছে।

লোক জনশক্তি পার্টি ৫টি, যুবজন শ্রমিক রাইথু কংগ্রেস পার্টি ৪টি, রাষ্ট্রীয় জনতা দল ৪টি, কমিউনিস্ট পার্টি অব ইন্ডিয়া (মার্কসবাদী) ৪টি, ইন্ডিয়ান ইউনিয়ন মুসলিম লীগ ৩টি, আম আদমি পার্টি ৩টি, ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চা ৩টি আসনে জয় পেয়েছে। পাশাপাশি অনেকগুলো দল দুটি করে এবং অনেকগুলো একটি করে আসন পেয়েছে।

এবার একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়েছে নরেন্দ্র মোদির দল বিজেপি। দলটির নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট মোট আসন পেয়েছে ২৯৫টি। অন্যদিকে প্রধান বিরোধীদল ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল কংগ্রেসের ইনডিয়া জোট পেয়েছে ২৩১টি আসন।

আরও পড়ুন:

দেশটির গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, ২০১৯ সালের নির্বাচনে মাত্র ৯৪টি আসনে জিতেছিল কংগ্রেসের নেতৃত্বাধীন জোট। আর কংগ্রেস এককভাবে পেয়েছিল ৫২টি আসন। অর্থাৎ এবারের নির্বাচনে বিস্ময়কর উন্নতি হয়েছে ভারতের প্রাচীনতম রাজনৈতিক দলটির।

ওই নির্বাচনে বিজেপি এককভাবে ৩০৩ আসনে জয় পেয়েছিল। আর বিজেপির নেতৃত্বাধীন জোট এনডিএ ৩৫২ আসনে জয় পায়। তবে এবারের নির্বাচনে বিজেপি সবচেয়ে বেশি আসন পেলেও সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় আসন পায়নি। সেক্ষেত্রে এনডিএ জোট শরিকদের ওপর নির্ভর করতে হবে বিজেপিকে।

google-news-channel-newsasia24

গোঁজামিল না দিয়ে খাদ্য ও সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিতের বাজেট দিন : ইসলামী আন্দোলন

মারুফ সরকার, স্টাফ রিপোর্টার: ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর সহকারী মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি প্রিন্সিপাল হাফেজ মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ বলেন, এদিক-সেদিক করে কিছু পণ্যের দাম কমবেশ করে ঋণ নির্ভর গোঁজামিল দিয়ে বিশালাকারের বাজেট পেশ করলেই অর্থনৈতিক নিরাপত্তা নিশ্চিত হবে না।

অর্থনৈতিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হলে আমদানী-রাপ্তানির নামে বিদেশে টাকা পাচার, চিকিৎসার নামে মুদ্রা পাচার, রিজার্ভ ও ব্যাংক লুটপাট বন্ধ করতে হবে। দলীয় সিন্ডিকেট ভেঙ্গে দ্রব্যমূল্য সহনশীল পর্যায়ে নিয়ে আসতে হবে। সামথিং কর পে করে কালো টাকা সাদা নয় আড়ৎদারী, মজুদদারী, কালোবাজারী ও দুর্নীতি করে হাতিয়ে নেয়া সকল টাকা-ই রাজস্ব ফান্ডে জমা দিতে হবে।

খাদ্য ও সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হলে ভর্তূকী দিয়ে আমদানী নয় উৎপাদন নির্ভর বাজেট পেশ করতে হবে এবং কৃষককে উৎপাদনে ভর্তুকী ও উৎসাহিত করতে হবে।

তিনি আজ মঙ্গলবার (৪ জুন) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, সরকার খাদ্যপণ্যের দাম কমাতে চরমভাবে ব্যর্থ হয়েছে। খাদ্যপণ্যের অভ্যন্তরীণ উৎপাদন না বাড়িয়ে পাশের রাষ্ট্র থেকে উচ্চ মূল্যে খাদ্যপণ্য আমদানী করেছে। এটা আমাদের অস্তিত্বকে হুমকীর মুখে ফেলে দিয়েছে। তিনি সরকারের প্রতি আহবান করেন, রিজার্ভ নিয়ে যে সংকট তৈরী হয়েছে তা পরিস্কার করুন।

আরও পড়ুন:

উচ্চবিলাসী মেগা প্রকল্প না বাড়িয়ে চাল, ডাল, তেল, নুনের দাম কমানোর বাজেট দিন। “বাজেটে মানুষের আশা-আকাঙ্খার প্রতিফলন ঘটবে” অর্থমন্ত্রীর এমন সস্তা কথায় গরীব-দুঃখী মানুষের পেটে ভাত ঝুটবে না।

খাদ্যের চাহিদা মেটাতে হলে ধান, চাল, ডাল, পেঁয়াজ, মাছ, পোল্ট্রি ও গবাদিপশু উৎপাদন ও লালন-পালনে কৃষককে ভর্তুকি ও প্রণোদনা দিতে হবে। দেশ ও মানুষ বাঁচাতে কৃষকের স্বার্থে উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে হবে।

google-news-channel-newsasia24

বিয়ের পর স্ত্রীকে একঘেয়ে লাগলে কী করবেন?

লিমা পারভীন: সবাই ভালোবাসার মানুষের সঙ্গে জীবন কাটাতে চায়। থাকতে চান এক ছাদের নিচে। সংসার করতে চান। একে অপরকে ভালোবাসায় আষ্টেপৃষ্ঠে বেঁধে রাখতে চান। কিন্তু সবার ইচ্ছা পূরণ হয় কি?

২৫ বছরের সংসার

ভদ্রলোকের নাম ইমদাদুল হক মিলন। বয়স ৫৫ বছর। ২৫ বছর ধরে এক নারীর সঙ্গে সংসার করছেন। প্রথম প্রথম তাদের মধ্য়ে সব ঠিক ছিল। একে অপরের প্রতি আগ্রহ ছিল। কিন্তু দ্বিতীয় সন্তান হওয়ার পরেই পরিস্থিতি বদলে যায়। ধীরে ধীরে একে অপরের মধ্যে দূরত্ব বাড়ে। এরপর থেকেই দমবন্ধ পরিস্থিতিতে রয়েছেন তিনি।

স্ত্রীকে ভালো লাগছে না

মিলন ও তার স্ত্রীর মধ্যে একে অপরের প্রতি শারীরিক আগ্রহ হারিয়ে গেছে অনেক দিন আগেই। এখন স্ত্রীর সঙ্গে তার কোনো কথাও হয় না। যেন এক ছাদের নিচে দুই অপরিচিত মানুষ একসঙ্গে থাকেন। কিন্তু এভাবে আর কত দিন?

বিশেষজ্ঞের পরামর্শ

এমন পরিস্থিতিতে দুজনকেই মনে জোর রাখতে হবে। কোনো বড় সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে দুজনকেই মুখোমুখি বসে কথা বলতে হবে। আপনার মনে কী চলছে , তার মনে কী চলছে এবং সম্পর্ক নিয়ে কী ভাবছেন দুজনেই আলোচনা করুন।

আলোচনা করতে ভুলবেন না

সম্পর্কে কোনো বড় সিদ্ধান্ত একা নেওয়া যায় না। তাই দুজন মিলেই টিমের মতো কাজ করতে হবে। মনে রাখতে হবে, আপনাদের সন্তান রয়েছেন। তারা বড় হয়েছে। আপনাদের যে কোনো সিদ্ধান্ত তাদের মনে প্রভাব ফেলবে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে তাদের সঙ্গে আলোচনা করা জরুরি। তাদের বিষয়টি বুঝিয়ে বলুন। আশা করি এতে পরিস্থিতি সহজ হবে।

আরও পড়ুন:

google-news-channel-newsasia24

জুন মাসে ছয় দিন বজ্রঝড় হতে পারে

আবহাওয়া ডেস্ক: চলতি জুন মাসে দেশে চার থেকে ছয় দিন হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বজ্রঝড় হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। সংস্থাটি বলছে, এ মাসেই দুটি লঘুচাপ হতে পারে যার মধ্যে একটি মৌসুমী নিম্নচাপেও পরিণত হতে পারে।

রবিবার (২ জুন) দীর্ঘমেয়াদি আবহাওয়ার পূর্বাভাস প্রদানের নিমিত্ত গঠিত বিশেষজ্ঞ কমিটির চেয়ারম্যান ও আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক মো. আজিজুর রহমান স্বাক্ষরিত জুন-২০২৪ মাসের দীর্ঘমেয়াদি আবহাওয়ার পূর্বাভাসে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, এ মাসে দেশে এক থেকে দুটি বিচ্ছিন্নভাবে মৃদু (৩৬ থেকে ৩৮ ডিগ্রি) থেকে মাঝারি (৩৮ থেকে ৪০ ডিগ্রি) ধরনের তাপপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে এবং দিন ও রাতের তাপমাত্রা স্বাভাবিক অপেক্ষা কিছুটা বেশি থাকতে পারে

এছাড়া এ তে আরও বলা হয়েছে, এ মাসে সামগ্রিকভাবে দেশে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা আছে। সেই সঙ্গে প্রথম সপ্তাহের প্রথমার্ধে সারা দেশে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ু (বর্ষাকাল) বিস্তার লাভ করতে পারে।

দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাসে আরও বলা হয়েছে, জুন মাসে ভারী বৃষ্টিপাতজনিত কারণে দেশের উত্তরাঞ্চল, উত্তর-পূর্বাঞ্চল এবং দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের কতিপয় স্থানে স্বল্পমেয়াদী বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে।

আরও পড়ুন:

বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থা অনুমোদিত জিপিসিএস, ইসিএমডাব্লিউএফ, জেএমএ, এনওএএ, আইআরআই, এপিসিসি, আরআইএমইএস এবং সিথ্রিএস থেকে প্রাপ্ত মডেল পূর্বাভাস, আবহাওয়া উপাত্ত, উর্ধ্বাকাশের আবহাওয়া বিন্যাস, বায়ুমণ্ডলের বিভিন্ন স্তরের বিশ্লেষিত আবহাওয়া মানচিত্র, জলবায়ু মডেল, এসওআই ইত্যাদির যথাযথ বিশ্লেষণ পূর্বক এ পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।

google-news-channel-newsasia24

ঈদযাত্রার ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু

নিউজ  এশিয়া২৪ ডেস্ক: আজ রবিবার থেকে পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে ঈদযাত্রার ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে । আজ দেওয়া হবে ১২ জুনের টিকিট। এবারও ঈদযাত্রার ট্রেনের সব টিকিট বিক্রি করা হবে অনলাইনে।

রেলওয়ের কর্মপরিকল্পনা থেকে জানা গেছে, আজ সকাল ৮টা থেকে পশ্চিমাঞ্চল এবং দুপুর ২টা থেকে পূর্বাঞ্চলের ট্রেনের টিকিট দেওয়া হবে।

বরাবরের মতো এবারও ঈদের আগে বিশেষ ব্যবস্থায় ৫ দিনের ট্রেনের আসন বিক্রি করা হবে। ১০ জোড়া বিশেষ ট্রেন চলবে ঈদযাত্রায়।

গত বছর থেকে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি), মোবাইল নম্বর এবং জন্মতারিখ দিয়ে নিবন্ধন করা যাত্রীর কাছে টিকিট বিক্রি করছে রেলওয়ে। গত ঈদ থেকে যুক্ত হয়েছে ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড (ওটিপি)। এবারের ঈদেও একই পদ্ধতিতে টিকিট দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন:

আগামী ১৭ জুন ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে ধরে টিকিট বিক্রির পরিকল্পনা সাজিয়েছে রেলওয়ে। ১৩ জুনের টিকিট ৩ জুন, ১৪ জুনের টিকিট ৪ জুন, ১৫ জুনের টিকিট ৫ জুন এবং ১৬ জুনের টিকিট ৬ জুন বিক্রি করা হবে।

ফিরতি যাত্রার ট্রেনের টিকিট বিক্রি শুরু হবে ১০ জুন থেকে। সেদিন দেওয়া হবে ২০ জুনের টিকিট। ২৪ জুন পর্যন্ত রেলের ফিরতি যাত্রা চলবে।

google-news-channel-newsasia24

সুনামগঞ্জে ৩ ভাবিকে ছুরিকাঘাত, ১ জনের মৃত্যু

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় পারিবারিক কলহের জের ধরে তিন ভাবিকে ছুরিকাঘাত করেছেন দেবর। তিন জনের মধ্যে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়ে স্বপ্না বেগম (৩৫) নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে। অন্য দুইজনকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শনিবার (১ জুন) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার বাদাঘাট দক্ষিণ ইউনিয়নের আমড়িয়া গ্রামের জামাল মিয়ার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে ১৮ বছর বয়সী দেবর আইনুল হক পলাতক। নিহত স্বপ্না বেগম (৩৫) নবাব মিয়ার স্ত্রী।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আমড়িয়া গ্রামের জামাল মিয়ার চার ছেলে। এর মধ্যে তিন জন বিবাহিত। সবাই একই পরিবারে বসবাস করেন। তাঁদের মধ্যে পারিবারিক নানা ঝামেলা ছিল।

এর জের ধরে শনিবার সকাল ১০টার দিকে ভাইদের সবার ছোট জন ঘরে থাকা তাঁর তিন ভাবি স্বপ্না বেগম (৩৫), মর্জিনা বেগম (৩০) ও ইয়াসমিনকে (২৬) ধারালো ছুরি দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাত করেন।

আহত নারীরা চিৎকার শুরু করলে আইনুল হক পালিয়ে যান। পরে আহত নারীদের চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

আরও পড়ুন:

এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক স্বপ্না বেগমকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে বাকি দুই জনের অবস্থা গুরুতর হলে তাঁদের সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বিশ্বম্ভরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল বণিক বলেন, নিহত নারীর মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত দেবরকে গ্রেপ্তারের জন্য বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চলছে।

google-news-channel-newsasia24

২৪ ঘণ্টায় ইসরায়েলি হামলায় প্রায় ১০০ ফিলিস্তিনি নিহত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ইসরায়েলি হামলা থেকে বাঁচতে গাজার দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর রাফায় আশ্রয় নিয়েছিলেন বাস্তুচ্যুত ফিলিস্তিনিরা। এই শহরটিই ছিল তাদের জন্য একমাত্র নিরাপদ স্থান।

কিন্তু সম্প্রতি আন্তর্জাতিক সব ধরনের চাপ উপেক্ষা করে রাফায়ও অভিযান শুরু করে ইসরায়েলি বাহিনী। ফলে সেখান থেকেও পালাতে শুরু করেন লাখ লাখ ফিলিস্তিনি।

এরই মধ্যে রাফা থেকে অন্যত্র সরে গেছেন ১০ লাখের বেশি ফিলিস্তিনি। এমন পরিস্থিতিতে সেখানে স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম বন্ধের কথা জানিয়েছে জতিসংঘের ফিলিস্তিনবিষয়ক শরণার্থী সংস্থা।

তাছাড়া অবরুদ্ধ গাজায় গত ২৪ ঘণ্টায় ইসরায়েলি হামলায় প্রায় ১০০ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন।

গত ৭ অক্টোবরের পর ইসরায়েলি হামলায় ৩৬ হাজার ৩৭৯ জন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ৮২ হাজার ৪০৭ জন। নিহতদের মধ্যে অধিকাংশই নারী ও শিশু।

আরও পড়ুন:

এদিকে বিরাট এলাকাজুড়ে ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের তাঁবু, আর সেগুলো দিয়ে লেখা একটি স্লোগান ‘অল আয়েস অন রাফা’ বা ‘সব চোখ রাফার দিকে’। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সাহায্যে তৈরি এই ছবিটি কয়েকদিন ধরে ব্যাপকভাবে শেয়ার হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

ছবিটি প্রথমবার শেয়ার হয়েছিল মালয়েশিয়া থেকে। এরপর দ্রুতই প্রায় সাড়ে চার কোটি ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারকারী তা শেয়ার করেন, যাদের মধ্যে ভারত, পাকিস্তান, মধ্যপ্রাচ্যের বহু তারকাও রয়েছেন।

google-news-channel-newsasia24

কান্না করায় ১১ মাসের সন্তানকে হত্যা করলো পাষন্ড পিতা

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: খাগড়াছড়ির পানছড়িতে সাদিয়া আক্তার নামে ১১ মাসের এক শিশু কন্যাকে হত্যা করেছে পিতা ইমরান হোসেন। ইমরান পানছ‌ড়ি উপজেলার লোগাং ইউপির শান্তিনগরের হান্নানের ছেলে।

khagrachori sadia akter murder newsasia24 imran baba
ঘাতক পাষন্ড পিতা ইমরান হোসেন

স্থানীয়রা জানায়, সোমবার (২৭মে ) রাত সাড়ে দশটার দিকে শিশু কন্যা সাদিয়া কান্না করলে পিতা ইমরান কোলে তোলে জোরে আছাড় মারে। এতে শিশুটি আহত হয়।

আহত শিশুটিকে হাসপাতালে না নিয়ে বাড়িতে রেখে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দিলে শিশুটি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে। প‌রে শিশুটির শারিরীক অবস্থার অবনতি হ‌লে মঙ্গলবার সকালে খাগড়াছড়ি জেলা সদর হাসপাতালে ভ‌র্তি করা করা হয়। শে‌ষে রাত আনুমানিক নয়টার দিকে চি‌কিৎসারত অবস্থায় শিশুটি মারা যায়।

আরও পড়ুন:

পানছ‌ড়ি থানা অ‌ফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: শফিউল আজম ঘটনার সত্যতা নি‌শ্চিত ক‌রে ব‌লেন, খবর পেয়ে পানছড়ি থানা পুলিশ ইমরান হোসেনকে আটক করে‌ছে। এ ব্যাপারে পানছড়ি থানায় একটি হত্যা মামলা দা‌য়ের করা হয়েছে বলে জানান তি‌নি।

google-news-channel-newsasia24

দিল্লিতে শিশু হাসপাতালে ভয়াবহ আগুন, নিহত ৭ নবজাতক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভারতের দিল্লির একটি শিশু হাসপাতালে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় এখন পর্যন্ত সাত শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া আহত হয়েছে বেশ কয়েকজন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শনিবার (২৫ মে) স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ১১টার দিকে পূর্ব দিল্লির বিবেক বিহার এলাকার এক ‘বেবি কেয়ার সেন্টারে’ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ১৬টি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছায়।

এ সময় ওই হাসপাতাল থেকে ১২ জন শিশুকে উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। উদ্ধার হওয়া শিশুদের চিকিৎসার জন্য নিকটবর্তী হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। রাতেই মৃত্যু হয় ৬ জনের।

একজনকে ভেন্টিলেশন সাপোর্টে রেখেছিলেন চিকিৎসকরা। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিল। রবিবার সকালে তারও মৃত্যু হয়েছে। এখনও চিকিৎসাধীন রয়েছে আরও পাঁচ শিশু।

আগুন লাগার কারণ এখনও জানা যায়নি।

আরও পড়ুন:

google-news-channel-newsasia24